‘হয়নি যাবার বেলা’



তরুণ বয়সটাতে মানুষ স্বপ্ন দেখতে ভয় পায়না সে স্বপ্ন যতো অবাস্তব আর অসম্ভব হোকনা কেন! স্বপ্ন ভঙ্গের বেদনায় দগ্ধ হবার অভিজ্ঞতা থাকেনা তাই মানুষ প্রচন্ড সাহসী থাকে। যৌবনের প্রথম শৈশবেই যৌবনকে বাজি ধরে জীবনের অসাধারণ স্কেচ আঁকে। তরুণ দু’চোখের সীমিত রেটিনায় সেই স্বপ্নের কোনো খুঁত ধরা পড়েনা। মারাত্মক উজ্জ্বল রঙের সেই স্কেচ বিবর্ণ হয়ে যেতে শুরু করে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই। সবার ক্ষেত্রে অবশ্য হয়না, তবে ব্যতিক্রম তো আর উদাহরণ হতে পারেনা। অভিজ্ঞতার বলিরেখা স্বপ্নকে শীর্ণ করে দেয়। মানুষ স্বপ্ন দেখতে ভয় পায়। অনেক ভ্যারিয়েবল নিয়ে ভাবে, যদি এটা হয়, যদি এটা না হয়…। স্বপ্নভঙ্গের তীক্ষ্ণ যন্ত্রণার স্বাদও সে পেয়ে যায়। সব মিলিয়ে এক বীভৎস অবস্থা। মানুষ স্বপ্ন দেখতে ভয় পায়, স্বপ্ন দেখতে চায়না, অন্যকেও দেখতে দেয়না।
.
ভাইয়া দেখ, খুব মন খারাপ নিয়ে লিখাটা লিখছি। তোমাদের বয়সে আমিও স্বপ্ন দেখব বলে দু’চোখ পেতেছিলাম। আমারো একটা স্বপ্ন ছিল আর এখন স্বপ্নভঙ্গের বেদনাও আছে। আমি তোমাদের দুর্দান্ত দুর্দান্ত সব স্বপ্ন দেখতে নিষেধ করবনা, তবে কীভাবে, কোন পথে হাঁটলে স্বপ্নভঙ্গের বেদনায় পুড়তে হবেনা তা নিয়ে কিছু বলার চেষ্টা করব ইনশা আল্লাহ্‌। তোমরা এখন যে পথের পথিক, সেই পথে হেঁটে ক্ষত বিক্ষত আমার দু’পা। চোরাবালি আর কাঁটাঝোপ গুলো চিনেছি একটা একটা করে, বুঝেছি কেন স্বপ্ন আহত হয় ক্ষণে ক্ষণে, তারপর একসময় নিহতই হয়ে যায়।
.
কেন স্বপ্নেরা মরে যায়, কেন উদীয়মান নক্ষত্ররা ঝরে যায়? ড্রাগস, প্রেম এই কালপ্রিটগুলোর কথা সচরাচর সামনে আসে। অভিভাবকেরা এগুলো নিয়ে কথা বলেন তাদের সন্তানদের সঙ্গে। মেনে চলতে না পারলেও (যেমন প্রেম) মোটামুটি সবাই সতর্ক থাকে বা মনের মধ্যে একটা খচখচানি থাকে। এই ভিডিওতে আমরা আলোচনা করেছি এমন কিছু বিষয় নিয়ে যেগুলো সাধারণত সেরকমভাবে টাইমলাইটে আসেনা, না আসাটাও স্বাভাবিক। এগুলো বর্তমান অস্থির সময়ের নবউদ্ভূত সব সমস্যা। আমাদের বাবামার বা বড়ভাইবোনদের জেনারেশনদের অনেকেরই এ ব্যাপারে বিন্দুমাত্র কোনো ধারণা নেই।

প্রেম সংক্রান্ত ব্যাপারস্যাপারগুলো আলোচনা করা হয়েছে এই সিরিজে- আততায়ী ভালোবাসা- http://lostmodesty.com/2018/09/আততায়ী-ভালোবাসা-প্রথম-পর/
.
#শুভ্রতার_ব্যাকরণ
#মুক্ত_বাতাসের_খোঁজে

source

Leave a Reply